শিরোনাম

গজারিয়ায় পরকীয়ায় অন্তঃসত্ত্বা স্কুল শিক্ষার্থী

0

 

 জাকির দর্জিঃ  মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় গুয়াগাছিয়া ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী পরকীয়া প্রেমে ৪ মাসের অন্তঃসত্তা হওয়ায় ২০২০ সালের এসএসসি পরীক্ষা দেয়া হলো না।

গুয়াগাছিয়া গ্রামের বোরহান উদ্দিনের ছেলে পুলিশ সদস্য মেহেদী হাসানের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ শিক্ষার্থী ওভুক্তভোগী পরিবারের।

শিক্ষার্থী জানান অভিযুক্ত মেহেদী হাসান ২০১৮ সালে ৯ম শ্রেনীতে থাকা অবস্থায় বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে নানা কৌশলে দুইজনের মাঝে প্রেম সম্পর্ক তৈরী করেছে। ১০ম শ্রেনীর টেষ্ট পরীক্ষার আগে দেড় বছর প্রেম সম্পর্ক রেখে আমি অন্তঃসত্তা মা হই।বিষয়টি সমাজে প্রকাশ পেলে আমার স্কুলে যাওয়া আসা ও লেখাপড়া বন্ধ হয়। ২২জানুয়ারী ২০২০ মেহেদী হাসানের মিথ্যা প্ররোচনায় ৪মাসের গর্ভজাকত বাবু গর্ভপাত ঘটানো হয়েছে।এ ঘটনায় টেষ্ট ও এসএসসি পরীক্ষা দেয়া হয় নাই তার।শুক্রবার ২৮ ফেব্রুয়ারী স্থানীয় সাংবাদীকদের সাথে বিষয়টি তুলে ধরে

ভুক্তোভোগী পরিবার । শিক্ষার্থীর মা জানান, অভিযুক্ত মেহেদী হাসান নিজের টাকায় বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পর্ন করবে বলে মিথ্যা প্ররোচনায় মেয়ের গর্ভে থাকা নবজাত বাবুর গর্ভপাত ঘটিয়েছে। মেহেদী হাসান প্রথমে একই গ্রামের ডাঃ এমদাদুল হক দেওয়ান (আব্দুল খালেক) কাছে চিকিৎসা ও পরামর্শ নিতে বলে আমার মেয়েকে। ডাঃ এমদাদুল হক( আব্দুল খালেক) বেশী টাকা দাবী করায় মেয়েকে নিয়ে মতলবের সাদুল্লাপুর জয়নাল ডাক্তারের ক্লিনিকে ২২জানুয়ারী গর্ভপাত ঘটানো হয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে মেহেদী মেয়ের সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছে। বিষয়টি গ্রামের ছোট বড় সবাই অবগত আছে। গ্রামের অনেক গন্যমান্য লোক নিয়ে একাধিকবার সালিশ বৈঠকে বসেছে। মেহেদী উপস্থিত না হয়ে বার বার সময় কাটাচ্ছে। উল্টো আমাদের ভয় ভীতি ও হুমকী দিয়ে যাচ্ছে, আমরা যেন বিচার নিয়ে বারা বারি না করি। মেয়ের মা আরও জানান, ন্যায় বিচার পেতে গ্রাম্য আদালত ইউনিয়ান পরিষদে মামলা চেষ্টা চলছে। সেখানে ব্যার্থ হলে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনে এবং নারী

অধিকার প্রতিষ্ঠা সংগঠনের সহযোগীতা চাইবে। ডাঃ আব্দুল খালেক ৪ মাসের অন্তঃসত্তা মেয়েকে চিকিৎসা ও পরামর্শ দেয়ার কথা স্বীকার করেছে। গ্রামের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সবুজ ফকির, মোঃশাজাহান, মোঃইব্রাহীম খলিল,এমদাদুল হক সহ ৬ থেকে ৮ জন বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার সালিশ করার চেষ্টা করেছে বলে সংবাদ কর্মীদের জানান। অভিযুক্ত মেহেদী হাসানের মতামত জানতে বারবার মোবাইলে চেষ্টা করে সংযোগ না পেয়ে, গ্রামের বাড়িতে পৌছে বাড়ি ঘরে তালা বন্ধ থাকায় কোন মতামত পাওয়া যায় নাই।

 

Print Friendly, PDF & Email

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.