শিরোনাম

গজারিয়ায় স্কুল শিক্ষার্থী জান্নাতের মৃত্যুর রহস্য -হত্যা নাকি আত্মহত্যা !!

0
   নিজস্ব প্রতিবেদক (মুন্সীগঞ্জ নিউজ ২৪ ডট নেট) #  মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় গুয়াগাছিয়া গ্রামের মো. জান্নাত (১৬) নামে এক কিশোরের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে  গজারিয়া থানা পুলিশ। তবে এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা এই নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে—– জনমনে। নিহত কিশোর মো. জান্নাত গজারিয়া উপজেলার গুয়াগাছিয়া ইউনিয়নের গুয়াগাছিয়া গ্রামের মালেশিয়া প্রবাসী মানিক বেপারীর ছেলে। সে গুয়াগাছিয়া ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী। গতকাল বৃহস্পতিবার (১০ মার্চ) দিনগত রাত ১২টার দিকে উপজেলার গুয়াগাছিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় নিহত জান্নাতের দাদা ফজর আলী চারজনের নাম অন্তর্ভুক্ত করে অজ্ঞাত ২-৩ জনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।নিহত জান্নাতের স্বজনদের সূত্রে জানা যায়, মো. জান্নাত একই এলাকার তার প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে ওই দিন রাত ১২টার দিকে প্রেমিকার বাড়িতে গেলে মো. জান্নাতকে প্রেমিকার পরিবারের লোকজন মারধর করে প্রেমিকার বাড়ির পাশে পরিত্যক্ত জায়গায় ফেলে রাখে। পরে জান্নাতের লোকজন খবর পেয়ে ঘটনার স্থলে এসে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
নিহত জান্নাতের দাদা ফজর আলী মুন্সীগঞ্জ নিউজ ২৪ ডট নেটকে জানান, গত তিন মাস যাবত একই এলাকার জান্নাতির সঙ্গে আমার নাতি জান্নাতের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে মেয়ের পক্ষ আমার নাতি জান্নাতকে মারধর করে। এর কয়েকদিন পর মেয়ের ভাই সিজান গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে মোবাইল ফোনে আমার নাতি সিজানকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে তাকে হত্যা করে।
তবে প্রেমিকার বাবা মোস্তফা তাদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট বলে দাবি করেছেন।
এদিকে গজারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মো. রইছ উদ্দিন জানান, খবর পেয়ে ঘটনার স্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মেয়ের চাচাকে থানায় আনা হয়েছে। প্রাথমিক সুরতহাল শেষে শুক্রবার দুপুরে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। তদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর নিশ্চিত হওয়া যাবে হত্যা নাকি আত্মহত্যা।
Print Friendly, PDF & Email

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.