শিরোনাম

মুন্সিগঞ্জ SSS ১৩ ও HSC ১৫ব্যাচের ইফতার বিতরণ

মুন্সিগঞ্জ পানহাটা ফোরকানিয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানায় এতিম শিশুদের ইফতারি বিতরণ

0

নিজস্ব প্রতিবেদক  (মুন্সীগঞ্জ নিউজ২৪ ডট নেট) #সুবিধাবঞ্চিত মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে নিরলসভাবে দেশের একপ্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্তে ছুটে বেড়াচ্ছে ১৩-১৫ এর তরুনরা। করোনার ক্রান্তিকালেও স্বল্প সময়ে তারা নিয়েছেন অনেক প্রশংসনীয় উদ্যোগ। সফলতার সঙ্গে প্রতিটি কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে হাসি ফুটিয়েছেন একঝাঁক অসহায়দের চোখে-মুখে। সৃজনশীলতা আর নান্দনিকতায় পরিপূর্ণ প্রতিটি কর্মসূচি। এরই ধারাবাহিকতায় পবিত্র মাহে রমজানের মাহেন্দ্রক্ষনে সংগঠনটি হাতে নিয়ে নিয়েছে মা-বাবা হারানো অভিভাবকহীন নিঃস্ব, অসহায় ও বিপন্ন এতিম শিশুদের ইফতার করানোর প্রশংসনীয় উদ্যোগ। এই প্রজেক্টের অংশ হিসেবে (২২ এপ্রিল) মুন্সিগঞ্জ পানহাটা ফোরকানিয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানায় এতিম শিশুদের ইফতারি করানো হয়।

শুক্রবার (২২ এপ্রিল) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মুন্সিগঞ্জ জেলার দায়িত্বরত সদস্য শ্রাবনী আক্তার জানান, ঢাকা, কিশোরগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জসহ দেশের ০৮টি বিভাগের প্রায় ২০টি জেলার এতিমাখানায় আমরা ইফতার বিতরণ করছি। আমাদের ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে বন্ধুদের নিকট হতে প্রাপ্য অনুদান হতে আমরা সাধ্যমতো এতিম খানায় ইফতার পৌছে দেয়ার চেষ্টা করছি। তিনি আরও বলেন, ’২০ রমজান থেকে আমাদের ইফতার বিতরণ কর্মসূচি শুরু হয়। ২৮ রমজান পর্যন্ত এ কর্মসূচি আমরা অব্যাহত রাখব। আমরা এতিমদের হাতে ইফতার তুলে দিতে পেরে অত্যন্ত আনন্দিত।’

সংগঠনের দায়িত্বরতরা বলেন, পরিবর্তনের মানসিকতা থেকেই আমাদের যাত্রা শুরু। সমাজের উচ্চবিত্ত মানুষ নিজের সন্তান এবং এতিম শিশুর মধ্যে যেন পার্থক্যের প্রাচীর না গড়েন, সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা যেন স্বাভাবিক জীবনযাপনের সুযোগ পায়, সে লক্ষ্য নিয়েই কাজ করছেন স্বেচ্ছাসেবীরা।

 

সংগঠনটির ইফতার বিতরণ কমিটির আহবায়ক আমিনুল্লাহ লিমন বলেন, অনেক এতিম বাচ্চা আছে যারা তিনবেলা খেতে পারে না, সব সময় তাদের ভাগ্যে ভালো খাবার জোটে না। পবিত্র রমজানের এই মাহেন্দ্রক্ষণে তাদের খাবারের আওতায় নিয়ে আসার উদ্দেশ্যে আমরা বিগত বছরগুলোর ন্যায় এ বছরও ইফতার বিতরণ কার্যক্রম শুরু করেছি। এটা আমাদের পাইলট প্রজেক্ট। ইনশাআল্লাহ আগামীতেও আমরা এ ধারা অব্যাহত রাখবো।

প্রাণের প্রেমান্ধতায় হলাম জড়ো, বন্ধুত্বের প্রণয়ে সিক্ত তেরো পণেরো” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ২০১৯ সালের ১৬ই সেপ্টেম্বর তারিখে ২০১৩ সালে এসএসসি ও ২০১৫ সালে এইচএসসিতে উত্তীর্ণ একঝাঁক তরুন শিক্ষার্থীদের হাত ধরে পথচলা শুরু করে ১৩-১৫ নামক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটি। এ সংগঠনটি ফেসবুকের মাধ্যমে তাদের স্বেচ্ছাসেবকমূলক কার্মকান্ড সম্পাদন করে থাকে। দেশের এসএসসি-২০১৩ ও এইচএসসি-২০১৫ ব্যাচের সকল বন্ধুদের একত্রিত করা, বন্ধুদের পাশে দাঁড়ানো এবং বন্ধুরা একত্রিত হয়ে সামাজিক দায়বদ্ধতার কিছু দায়িত্ব পূরণ করার স্বপ্ন নিয়ে এই ফেসবুক গ্রুপটির যাত্রা। ইতিমধ্যে এই গ্রুপের বন্ধুরা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে একে অপরের পাশে দাঁড়াচ্ছে, যার মধ্যে চিকিৎসা সেবায় সহযোগিতা ও জরুরী ভিত্তিতে রক্তদান, কুরআনুল কারিম খতম/ হাদিয়া, ত্রাণ বিতরণ, শীতবস্ত্র বিতরণ, পুলিশি ও আইনি সহযোগিতা অন্যতম।

২০১৩ সালে এসএসসি ও ২০১৫ সালে এইচএসসিতে উত্তীর্ণ একসকল তরুণরা কঠোর পরিশ্রম দিয়ে পাল্টাতে চায় দেশের চেহারা। তারা চান, সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের আর্তনাতের বার্তা পৌঁছে যাক দেশজুড়ে, এতিম শিশুদের ভরসার প্রতীক হোক ১৩-১৫ সংগঠন। আর এতিম শিশুদের ভালোবাসুক সবাই।

Print Friendly, PDF & Email

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.